মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটে নৌ-দুর্ঘটনায় ২৬ জনের মৃত্যুর ঘটনায় শিমুলিয়া ঘাটের ইজারাদার, স্পিডবোট মালিক ও চালকসহ চারজনের বিরুদ্ধে শিবচর থানায় একটি মামলা হয়েছে। গতরাতে নৌ পুলিশের এসআই লোকমান হোসেন শিবচর থানায় এই মামলা দায়ের করেছেন।

এদিকে, স্পিডবোট চালক শাহ আলম মুমূর্ষু অবস্থায় শিবচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এর আগে, গতরাতেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতদের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এসময় প্রতিটি পরিবারকে নগদ ২০ হাজার টাকা করে অনুদান দেন জেলা প্রশাসন।

এছাড়া দুর্ঘটনার কারণ জানতে জেলা প্রশাসনের গঠিত ৬ সদস্যের কমিটি এরিমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে। এই কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। গতকাল কাঁঠালবাড়ি ঘাটে একটি কার্গো জাহাজের সাথে স্পিডবোটের সংঘর্ষে প্রাণ হারায় নারী ও শিশুসহ ২৬ জন।

নিহতরা হলেন- খুলনা জেলার তেরখাদা উপজেলার বারুখালির মনির মিয়া (৩৮), হেনা বেগম (৩৬), সুমী আক্তার (৫) ও রুমি আক্তার (৩), ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলার চরডাঙা গ্রামের বাবা আরজু শেখ (৫০), ইয়ামিন সরদার (২), মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার সাগর ব্যাপারী (৪০), কুমিল্লার দাউদকান্দির কাউসার আহম্মেদ (৪০), রুহুল আমিন (৩৫), মাদারীপুর জেলার রাজৈরের তাহের মীর (৪২) ও কুমিল্লারর তিতাসের জিয়াউর রহমানের (৩৫), মাদারীপুরের শিবচরের হালান মোল্লা (৩৮), শাহাদাত হোসেন মোল্লা (২৯), বরিশাল তেদুরিয়ার আনোয়ার চৌকিদার (৫০), মাদারীপুর রায়েরকান্দি মাওলানা আব্দুল আহাদ (৩০), চাঁদপুর জেলার উত্তর মতলব মো. দেলোয়ার হোসেন (৪৫), নড়াইল লোহাগড়া রাজাপুর জুবায়ের মোল্লা (৩৫), মুন্সিগঞ্জ সদর সাগর শেখ (৪১), বরিশাল মেহেন্দিগঞ্জ সায়দুল হোসেন (২৭), রিয়াজ হোসেন (৩৩), ঢাকা পিরেরবাগ খেরশেদ আলম (৪৫), ঝালকাঠি নালসিটি এসএম নাসির উদ্দীন (৪৫), বরিশাল মেহেন্দিগঞ্জের মো.সাইফুল ইসলাম (৩৫), পিরোজপুর চরখামা মো.বাপ্পি (২৮), পিরোজপুর ভান্ডারিয়া জনি অধিকারী (২৬)

 

 

 

 

বিবিসি

প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print