না, কোনও অ্যাডভেঞ্চার নয়। নয় কোনও পরীক্ষাও। নিতান্ত দায়ে পড়ে বিমান কর্তৃপক্ষকে এক মহিলাকে একা নিয়ে উড়়তে হল!

সবটাই কোভিডের (covid) কারণে। সুদানের (sudan) ৪২ বছর বয়সি এক মহিলা খার্তুম থেকে কায়রোয় নামার পরে আরটি-পিসিআর পরীক্ষা হয় তাঁর। পরীক্ষায় তাঁর কোভিড সংক্রমণ ধরা পড়ে। কোভিড পরীক্ষার ফল দেখে তখন তাঁকে আর নিজেদের দেশে ঢুকতে দিতে চাননি মিশর (egypt) কর্তৃপক্ষ। মহিলাকে জানানো হয়, ফিরতি উড়ানেই দেশে ফিরে যেতে হবে তাঁকে।

এদিকে ওই যাত্রীকে উড়ানে নিতে আর রাজিই হচ্ছিলেন না বিমানের ক্যাপ্টেন। কায়রো বিমানবন্দর সূত্রের খবর, ক্যাপ্টেনকে বোঝানো হয়, বিমানের শেষের দিকে আলাদা বসানো হবে রোগীকে। এবং সমস্ত সুরক্ষাবিধি মেনেই যাবেন তিনি। তা সত্ত্বেও অন্য যাত্রীদের সুরক্ষার কথা ভেবে তাঁকে নিতে রাজি হননি ক্যাপ্টেন। অথচ কোভিড রোগীর পক্ষে মিশরে ঢোকাও তখন আর সম্ভব নয়।

প্রায় পাঁচ ঘণ্টা দর-কষাকষির পরে ঠিক হয়, উড়ানটি খার্তুমে ফিরে যাবে শুধুমাত্র ওই মহিলাকে নিয়েই। তিনি ছাড়া অন্য সব যাত্রীর জন্য উড়ান সাময়িক বাতিল হয়। পরবর্তী উড়ান ধরার আগে পর্যন্ত তাঁদের হোটেলে রাখা হয়।
শেষমেশ খার্তুমের বিমান রওনা হয় চার বিমানকর্মী ও এক যাত্রীকে নিয়েই।

 

 

 

 

 

 

জি নিউজ

প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print