মূল দল নয় বরং, অনূর্ধ্ব-২৩ এবং জাতীয় দলের কিছু ফুটবলারের সমন্বয়ে গঠিত দল নিয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে অংশ নিতে বাংলাদেশে এসেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন। তবে লক্ষ্য শিরোপা ধরে রাখা। জানিয়েছেন দলের ম্যানেজার জাবের জারিন। কোচ অবশ্য ভাঙা ইংরেজিতে শুভকামনা জানিয়েছেন সব দলকে।

দরজায় কড়া নাড়ছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের ষষ্ঠ আসর। টুর্নামেন্টে মাতাতে বাংলাদেশে আসতে শুরু করেছে অংশগ্রহণকারী দলগুলো। সবার আগে বাংলাদেশে পা রেখেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন এবং মরিশাস।

ফিলিস্তিন থেকে জর্ডান হয়ে দুবাই থেকে ঢাকায় মধ্যপ্রাচের দেশটি। তাই চোখে মুখে ক্লান্তির ছাপ।

আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন। তাদের সবার নজর। সামনে সিংগাপুরের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচ খেলবে মধ্যপ্রাচ্যের দলটি। তাই আসরটিকে তারা দেখছেন প্রস্তুতির মঞ্চ হিসেবে।

মূল দল নিয়ে বাংলাদেশে আসেনি যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশটি। মূল দলের ৮ ফুটবলারের সাথে অনূর্ধ্ব-২৩ দলের ৮। বাকিরা ঘরোয়া ফুটবলার। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচের জন্য এখান থেকে তরুণ ফুটবলার খুঁজতে চায় ফিলিস্তিন টিম ম্যানেজম্যান্ট।

জাবের জারিন বলেন, ফুটবলারদের মাঝে দীর্ঘ ভ্রমণ ক্লান্তি রয়েছে। স্বল্প সময়ে অনুশীলনের মাধ্যমে কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করবে তারা। আমাদের সামনে সিংগাপুরের সাথে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচ রয়েছে। আমরা ঐ ম্যাচের আগে নিজেদের প্রস্তুত করতে এই টুর্নামেন্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। আমাদের লক্ষ্য এই দল থেকে নতুন কিছু খেলোয়াড় বের করা। যাদের আমরা সামনের ম্যাচে সুযোগ দিতে পারি।

তবে দল যেমনই হোক চ্যাম্পিয়নদের লক্ষ্য শিরোপা ধরে রাখা। কোচ অবশ্য ভাঙ্গা ইংরেজিতে শুভকামনা জানিয়েছেন সব দলকে। আভাস দিয়ে গেলেন মাঠের লড়াইয়ের।

জাবের জারিন বলেন, দেখুন আমরা বর্তমান চ্যাম্পিয়ন এই আসরের।আমরা হয়ত মূল দলের সব ফুটবলার নিয়ে আসিনি। তবে আমরা শিরোপা ধরে রাখার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী। ফুটবলাররা নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে আশাকরি শিরোপাটা আমাদের ঘরেই থাকবে।

বুধবার প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে মাঠে নামবে ফিলিস্তিন।

 

 

 

সময় নিউজ

প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print