সুইডেনের রাজার কাছ থেকে শাড়ি পরে নোবেল পুরস্কার গ্রহণ করছেন অর্থনীতিবিদ এসথার ডুফলো। ছবিতে ধুতি-পাঞ্জাবি পরা অভিজিৎ ব্যানার্জিকেও দেখা যাচ্ছে।

২০১৯ সালে নোবেল পুরস্কার পাওয়া ফরাসী অর্থনীতিবিদ এসথার ডুফলো বাঙালী নারীদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক শাড়ি-ব্লাউজ পরে পুরস্কার গ্রহণ করেছেন।

মঙ্গলবার ১০ই ডিসেম্বর স্টকহোমে অনুষ্ঠিত হওয়া অনুষ্ঠানে সুইডেনের রাজা ষোড়শ কার্লের কাছ থেকে তিনি পুরস্কার গ্রহণ করেন।

এসথার ডুফলো ছাড়াও এবছরে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন তার স্বামী ও যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত বাঙালী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক ব্যানার্জি এবং মার্কিন অর্থনীতিবিদ মাইকেল ক্রেমার।

পুরস্কার গ্রহণ অনুষ্ঠানে অভিজিত ব্যনার্জিও বাঙালী পোশাকে উপস্থিত হয়েছিলেন। তাঁর পরনে ছিল ধুতি, পাঞ্জাবি ও কুর্তি।

তবে নোবেল পুরস্কার গ্রহণের মঞ্চে শাড়ি পরার ঘটনা এই প্রথম নয়।

২০০৬ সালে গ্রামীন ব্যাংক ও ড. মুহাম্মদ ইউনুস নোবেল শান্তি পুরস্কার পাওয়ার পর সেবছরের পুরস্কার গ্রহণ অনুষ্ঠানে মুহাম্মদ ইউনুসের সাথে যাওয়া গ্রামীন ব্যাংকের নারী সদস্যরা শাড়ি পরে অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন।সামনের সারিতে অর্থনীতিতে নোবেল বিজয়ী মাইকেল ক্রেমার (ডানে) ,এসথার ডুফলো ও অভিজিৎ ব্যানার্জি


ফ্রান্সে জন্ম নেয়া ৪৭ বছর বয়সী এসথার ডুফলো বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরুতে ইতিহাস ও অর্থনীতি বিষয়ে পড়াশোনা করেন।

১৯৯৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি থেকে অর্থনীতিতে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন তিনি।

নোবেল পুরস্কার পাওয়ার আগে জীবনে একাধিক সম্মনসূচক পুরস্কার পেয়েছেন এসথার ডুফলো।

অভিজিৎ ব্যানার্জির সাথে তার লেখা বই ‘পুওর ইকোনমিক্স: এ র‍্যাডিকাল রিথিঙ্কিং অব দ্য ওয়ে টু ফাইট পোভার্টি’ বিশ্বের ১৭টি ভাষায় অনূদিত হয়েছে।

 

 

 

 

বিবিসি

প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print