বর্তমানে বিশ্বব্যাপী করোনা সংকটে রোগীর জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চিকিৎসা উপকরণ ভেন্টিলেটর। যেসব রোগীর করোনা সংক্রমণ খুবই মারাত্মক তাদের জীবন রক্ষায় কার্যকরী একটি যন্ত্র ভেন্টিলেটর৷ রোগীর ফুসফুস যদি কাজ না করে তাহলে রোগীর শ্বাস-প্রশ্বাসের কাজটা ভেন্টিলেটর করে দেয়৷

বর্তমানে ভেন্টিলেটর সংকটের সময়ে কম খরচে ভেন্টিলেটর তৈরির নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী সানি জুবায়ের। তার উদ্ভাবিত প্রযুক্তিতে একেকটি ভেন্টিলেটরে খরচ হবে মাত্র ৭ হাজার টাকা।

নিজের তৈরি সাশ্রয়ী মূল্যের এই ভেন্টিলেটর সম্পর্কে সানি জুবায়ের বলেন, ‘আমরা বাইরের দেশ থেকে যে ভেন্টিলেটর আনি এগুলোর দাম অনেক বেশি। ওই ভেন্টিলেটর বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা হয়। শুধু যে শ্বাস-প্রশ্বাসের কাজ তেমন না অনেক ক্যাটাগরি থাকে। বর্তমানে করোনা চিকিৎসার জন্য যেটা প্রয়োজন তা হলো ভেন্টিলেটরের সাহায্যে ফুসফুসে অক্সিজেন সাপ্লাই দেওয়া এবং কার্বন-ডাই-অক্সাইড বের করা৷ আর এই কাজটা করা হয় মেকানিক্যাল ভাবে৷ আমার তৈরি ভেন্টিলেটর এই কাজটা পুরোপুরি করতে সক্ষম।’

তিনি দাবী করেন, তার এই যন্ত্রটি সহজলভ্য এবং ‌এটি ব্যবহারে অনেক করোনা রোগীকে সেভ করা সম্ভব হবে।

সানি জানান, কিভাবে ভেন্টিলেটরটি কাজ করছে তার একটা ভিডিও চিকিৎসকদের পাঠিয়েছি৷ তারা বলেছে ঠিক আছে, এভাবেই ভেন্টিলেটর কাজ করে।

সানি আরও বলেন,‘আমি চেষ্টা করে যাচ্ছি। প্রয়োজনে এটি আরও উন্নত করা হবে যাতে সহজেই এটি করোনা রোগীদের চিকিৎসায় ব্যবহার করা যায়।’

ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নেহাল আহমেদ এ বিষয়ে বলেন, ‘মহামারীর এই দুর্দিনে ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থী সানী জুবায়েরর যন্ত্রটি প্রশংসার দাবিদার। আমরা এই প্রজেক্টটি সরকারের কাছে তুলে ধরবো।’

 

 

 

 

 

 

 

 

সময় নিউজ

প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print