করোনাভাইরাসে গোটা বিশ্বে এ পর্যন্ত দুই লক্ষেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হলেও ৮ লক্ষ ৩৭ হাজার ৩২৩ জন আক্রান্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। চিনের থেকে ধীরে ধীরে গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসের প্রকোপ অনেক দেশেই কিছুটা কমেছে। কিন্তু এরই মধ্যে একটা ছবিকে ঘিরে আতঙ্ক ছড়িয়েছে নেট দুনিয়ায়। করোনা থেকে সেরে ওঠার পর একেবারে বদলে গিয়েছে দুই চিনা চিকিৎসকের গায়ের রং। ওই দুই চিকিৎসক ছিলেন ফর্সা, সেরে ওঠার পর হয়ে গেলেন কালো!

বিশ্বে করোনাভাইরাসের কথা প্রথম প্রকাশ্যে আসে চিনের উহানে। জানা গিয়েছে, এখানকার দুই চিকিৎসক ই ফ্যান এবং হু ইফেং আক্রান্ত হন এই ভাইরাসে। এর মধ্যে ৪২ বছরের চিকিৎসক ই ফ্যানের শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত সঙ্কটজনক হয়ে পড়ে। তাঁকে ৩৯ দিন লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল। উহানের সেন্ট্রাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন আর এক চিকিৎসক হু ইফেংও। মাস দেড়েকের মাথায় ধীরে ধীরে সেরে ওঠে দুজনেই। কিন্তু সেরে ওঠার পর নিজেদের দেখে চিনতেই পারেননি ওই দুই চিকিৎসক। দুই চিকিৎসকেরই গায়ের রং ফর্সা থেকে একেবারে কালো হয়ে গিয়েছে!

উহানের সেন্ট্রাল হাসপাতালে অন্যান্য চিকিৎসকরা জানান, করোনা সংক্রমণের ফলে এই দুই চিকিৎসকের যকৃৎ বা লিভার মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। একই সঙ্গে হরমোন সংক্রান্ত বেশ কিছু সমস্যার কারণে দুজনেই অস্বাভাবিক কালো হয়ে গিয়েছেন।

চিনা সরকারি সূত্রের খবর, এই দুই চিকিৎসকের পাকস্থলী বিকল হয়ে যাওয়ার ফলে শরীরে হরমোনের ভারসাম্য বিগড়ে গিয়েছিল তাঁদের শরীরে। সেই কারণেই অদ্ভূতভাবে তাঁদের ত্বকের ফর্সা ভাব চলে গিয়ে তাঁরা কালো হয়ে গিয়েছেন। জানা গিয়েছে, আগের থেকে এখন অনেকটাই সুস্থ ই ফ্যান এবং হু ইফেং। তবে পুরোপুরি সেরে ওঠার পরও গায়ের রং আগের মতো স্বাভাবিক হবে কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

জি নিউজ

প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print