পেপ গার্দিওলা বলেছেন,‘ প্রত্যাশার কারণে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দারুন চাপ অনুভব করেছিল ম্যানচেস্টার সিটি।’ বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে গতকাল শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে সিটিজেনদের সুবিধাজনক অবস্থানে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা রেখেছে ৯০তম মিনিটে ফিল ফোডেনের গোলটি।
সব ধরনের টুর্নামেন্টে সর্বশেষ ২৮ ম্যাচের ২৭টিতেই জয়লাভ করেছে ম্যানচেস্টার সিটি। ফলে এক মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, প্রিমিয়ার লিগ, এফএ কাপ ও লিগ কাপ চরাটি শিরোপা জয়ের ইতিহাস গড়ার পথে দারুন ভাবে টিকে আছে প্রিমিয়ার লিগের জায়ান্টরা।
তবে কোচ পেপ গার্দিওলার তত্বাবধানে বিগত চার মৌসুমে একবারও শেষ আটের বৈতররনী পার হতে পারেনি ম্যানচেস্টার সিটি। গার্দিওলা বলেন,‘ আজও (মঙ্গলবার) আমরা চাপ অনুভব করেছি। নিজেদের মাঠে হলেও বুঝতে পারছিলামনা কিভাবে প্রতিক্রিয়া দেখাতে হবে। তবে শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলে ড্রয়ের চেয়ে এই জয়টি বেশ ভাল হয়েছে। যদিও এ জন্য আমাদের পুরো ৯০ মিনিট অপেক্ষা করতে হয়েছে।’
আগামী ১৪ এপ্রিল জার্মানিতে ফিরতি লেগে মুখোমুখি হবে এই দল দুটি। সেখানে জয় পেলে সেমি ফাইনালে তাদেরকে হয় বায়ার্ন মিউনিখ কিংবা প্যারিস সেন্ট জার্মেই’র (পিএসজি) মুখোমুখি হতে হবে।
অপরদিকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের আগামী মৌসুমে অংশগ্রহনের সম্ভাবনা অনেকটাই ফিকে হয়ে আছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের। কারণ বুন্দেসলিগায় শীর্ষ চারটি দলের চেয়ে এখনো ৭ পয়েন্টের ব্যবধানে পিছিয়ে রয়েছে জার্মান জায়ান্টরা।
ইত্তিহাদ স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার রাতে শুরুটা ভালই ছিল সফরকারী বরুশিয়ার। এমরের কাছ থেকে বল পেয়ে রিয়াদ মাহরেজের প্রতিআক্রমন পর্যন্ত মাঠের নিয়ন্ত্রন বেশ ভালভাবেই নিয়ে ফেলেছিল জার্মান জায়ান্টরা। অবশ্য ১৯তম মিনিটে পরিকল্পিত আক্রমনে সাফল্য পায় সিটিজেনরা। মাহরেজের সঙ্গে বল আদান প্রদানের মাধ্যমে সফরকারী শিবিরে ঢুকে পোস্টের বেশ কাছ থেকেই গোল করে সিটিকে এগিয়ে দেন ডি ব্রুইনা। এর আগে প্রথম সুযোগটি লাভ করেছিল অবশ্য ডর্টমুন্ড। তবে সমাপ্তি টানতে ব্যর্থ হয় তারা। ফলে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় স্বাগতিক দল।
বিরতি থেকে ফেরার পর গোল পরিশোধ করতে না পারলেও হাল ছাড়েনি ডর্টমুন্ড। এর সুফল ঘরে তুলে ৮৪তম মিনিটে। সমতায় ফিরে ডর্টমুন্ড। হালান্ডের পাসের বল নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে ডান পায়ের শটে স্বাগতিক গোলরক্ষক এডারসনকে পরাস্থ করেন রুইস। এতে ফের হতাশা নেমে আসে স্বাগতিক শিবিরে।
শেষ পর্যন্ত অবশ্য জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে গার্দিওলার শিষ্যরা। ম্যাচের ৯০ মিনিটে ডি ব্রুইনার ক্রস থেকে ডি-বক্সে ইলকে গুন্ডোগান বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ফোডেনকে পাস দেন। বল পেয়ে কাট ব্যাক করে সহজেই সফরকারি পোস্টে চালান করে দেন ইংলিশ মিডফিল্ডার (২-১)।

 

 

 

বাসস

প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print