চট্টগ্রামের কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে পালিয়ে যাওয়া বন্দী ফরহাদ হোসেন রুবেলকে নরসিংদীর একটি চর থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার ভোর থেকে কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে নিখোঁজ ছিলেন একটি খুনের মামলার এই আসামী।

ওই হাজতি পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেছে কারাগার কর্তৃপক্ষ।

এই ঘটনায় দুইজন কারা কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে বিভাগীয় মামলাও করা হয়েছে। পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখার জন্য তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কারা বিভাগ।

যেভাবে পালিয়েছিল বন্দী

তদন্ত কমিটির প্রধান ও খুলনা বিভাগের কারা উপ-মহা-পরিদর্শক মোঃ. ছগীর মিয়া বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, ”ওই হাজতি নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে আমরা সবগুলো সম্ভাবনাই বিবেচনায় রেখে কাজ শুরু করেছিলাম।”

”হয়তো সে পালাতে গিয়ে কোন সুয়ারেজ লাইনে আটকে থাকতে পারে, ভেতরে লুকিয়ে থাকতে পারে বা মারাও গিয়ে থাকতে পারে। এসব বিবেচনায় ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের দিয়ে কারাগারের ভেতরে তল্লাশি চালানো হয়।”

তিনি আরও বলেছেন, “কারাগারের সবগুলো সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে আমরা বিশ্লেষণ করতে শুরু করি। গত সোমবার রাতেই আমরা দেখতে পাই, সে পাঁচটা ১৬ মিনিটে তার কারাকক্ষ থেকে বের হয়ে নিচে নেমেছে। “

সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্লেষণ করে কারা কর্তৃপক্ষ এই হাজতির পালানোর বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার সাথে সাথেই তাকে খোঁজার জন্য অভিযান শুরু করেছিল বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

তারা বলেছেন, সেলের কাছাকাছি ফাঁসির মঞ্চের পাশে থাকা একটি দোতলা ভবন এখন চারতলা নির্মাণ করা হচ্ছে। সেই ভবনের ছাদ সম্প্রতি ঢালাই দেয়া হয়েছে। নির্মাণাধীন থাকায় এই ভবনটিতে কোন পাহারা ছিল না।

ভোরে কারাগারের বন্দীদের সেল থেকে বের করার পর খানিকক্ষণ হাঁটাচলা করার সুযোগ দেয়া হয়। এরপর তারা সকালের নাস্তা পান। এই সময়ের সুযোগে পালিয়ে গিয়েছিলেন ফরহাদ হোসেন রুবেল।

কারা উপ-মহাপরিদর্শক মোঃ. ছগীর মিয়া বলছেন, ”আরেকটা সিসি ক্যামেরায় আমরা দেখতে পেয়েছি, ভোর পাঁচটা ২৯ মিনিটে সে নির্মাণাধীন চারতলা ভবনের ছাদ দিয়ে লাফ দিয়ে কারা প্রাচীরের বাইরে পড়ে। এরপর সে পালিয়ে যায়।”

রাতেই এই তথ্যটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানিয়ে দেয়ার পর রুবেলের খোঁজে অভিযান চালানো হয়।

মঙ্গলবার ভোরে নরসিংদীর রায়পুর উপজেলার বাল্লাকান্দি চর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এখন তাকে চট্টগ্রামে নিয়ে আসা হচ্ছে।

গত ছয়ই ফেব্রুয়ারি রাতে এক ব্যক্তিকে বুকে ছুরি চালিয়ে হত্যার মামলায় ফরহাদ হোসেন রুবেলকে গ্রেপ্তার করে সদরঘাট থানা পুলিশ। নয়ই ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি চট্টগ্রামের কেন্দ্রীয় কারাগারে ছিলেন।

বিবিসি

প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print