বাংলাদেশে ব্যাংকিং খাতে মোট ঋণের ১০ দশমিক ৬৭ শতাংশই এখন খেলাপি ঋণ। বাংলাদেশের  কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, গত বছর সেপ্টেম্বরের শেষে ব্যাংকগুলোতে খেলাপি ঋণ ছিল ৬৫ হাজার ৭৩১ কোটি টাকা। এ বছরের সেপ্টেম্বরের শেষে ব্যাংকগুলোতে খেলাপি ঋণের পরিমান বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮০ হাজার ৩০৭ কোটি টাকারও বেশি।

এই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ১৪ হাজার ৫৭৬ কোটি টাকা। এরমধ্যে গত তিন মাসেই খেলাপি ঋণের পরিমাণ বেড়েছে ছয় হাজার ১৫৯ কোটি টাকা।

এ প্রসঙ্গে, বাংলাদেশে ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ নিয়ে উদ্বিগ্ন বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংকে আয়োজিত এক কর্মশালায় গভর্নর ফজলে কবির বলেছেন, ‘ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ একটি গুরুতর সমস্যা। এই বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংক উদ্বিগ্ন। তবে হঠাৎ করেই দেশে খেলাপি ঋণের পরিমাণ বাড়েনি। এটা দীর্ঘদিন ধরে ধারাবাহিকভাবে বেড়েছে।’

অর্থনৈতিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ) ও বাংলাদেশ ব্যাংক যৌথভাবে আয়োজিত এ কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন- ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চৌধুরী, এসএম মনিরুজ্জামান, ইআরএফ’র সভাপতি সাইফ ইসলাম দিলাল, সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান প্রমুখ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এ বছরের সেপ্টেম্বর মাসের শেষ দিন পর্যন্ত ব্যাংকগুলো গ্রাহকদের ঋণ দিয়েছে সাত লাখ ৫২ হাজার ৭৩০ কোটি টাকা। এরমধ্যে খেলাপি হয়েছে ৮০ হাজার ৩০৭ কোটি ২১ লাখ টাকা, যা মোট বিতরণকৃত  ঋণের ১০ দশমিক ৬৭ শতাংশ। পার্সটুডে

উক্ত প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print