করোনা পরিস্থিতিতে টোকিও অলিম্পিক গেমসটিকে নিরাপদ এবং সুরক্ষিত করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করা হবে। এমনটাই জানান টোকিও অলিম্পিক আয়োজনের সভাপতি ইউশিরো মোরি। আর ইউএস ওপেন আয়োজনের সফলতাকে অনুপ্রেরণা হিসেবে দেখছেন অলিম্পিক আয়োজক কমিটির প্রধান নির্বাহী তোশিরো মুতো।

দ্য অলিম্পিক গেমস। বিশ্বের অন্যতম মেগা ইভেন্ট। যা চলতি বছরের জুলাইয়ে, জাপানের টোকিওতে অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিলো। কিন্তু করোনা মহামারীর কারণে তা এক বছর পিছিয়ে দেয় বিশ্ব অলিম্পিক কমিটি।

তবে, করোনা পরিস্থিতিতেও আগামী বছর নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই অলিম্পিক আয়োজনের জন্য মুখিয়ে আছে জাপান। তবে, টোকিও অলিম্পিক আয়োজনের সভাপতি ইউশিরো মোরি সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, কিন্তু করোনা সংক্রমণের কথা মাথায় রেখেই অলিম্পিকের সকল প্রস্তুতি নেয়া হবে। এ কারণেই বর্নাঢ্যভাবে অলিম্পিক আয়োজন না করার পরিকল্পনার কথা বলেন তিনি।

অলিম্পিক আয়োজক কমিটির প্রধান নির্বাহী তোশিরো মুতো বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করবো যতটা সাধারণভাবে অলিম্পিক আয়োজন করা যায়। এ জন্য সেপ্টেম্বরের শেষে আমরা আমাদের পরিকল্পনাটি চূড়ান্ত করবো। তবে, আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি এর মধ্যেই টোকিও গেমসকে জাঁকজমকপূর্ণ না করার জন্য আলোচনা শুরু করে দিয়েছে।’

এছাড়া, গেমসটিকে অংশগ্রহণকারীদের জন্য নিরাপদ ও সুরক্ষিত করার সবোর্চ্চ চেষ্টা করবেন বলেও জানান মোরি।

টোকিও অলিম্পিক-২০২১ এর সভাপতি ইউশিরো মোরি বলেন, ‘আমরা করোনার প্রতিটি পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। গেমসটিকে নিরাপদ এবং সুরক্ষিত করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাবো আমরা।’

অন্যদিকে, ইউএস ওপেনের সফলতাকে অনুপ্রেরণা হিসেবে দেখছেন টোকিও অলিম্পিক আয়োজক কমিটির প্রধান নির্বাহী তোশিরো মুতো।

চলতি বছরের জুলাইয়ে টোকিও অলিম্পিক অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিলো। করোনা মহামারির কারণে তা পিছিয়ে ২০২১ সালের ২৩ জুলাই নির্ধারণ করা হয়েছে।

 

 

 

 

 

সময় নিউজ

প্রতিবেদনটি জনস্বার্থে প্রকাশ করা হলো

image_pdfimage_print